বৃহস্পতিবার , জুলাই ৭ ২০২২
নীড় পাতা / জেলা জুড়ে / লালপুরে বন্যায় ফসলের ক্ষতি কৃষকেরা দিশেহারা

লালপুরে বন্যায় ফসলের ক্ষতি কৃষকেরা দিশেহারা

নিজস্ব প্রতিবেদক,লালপুর :
ফারাক্কা বাঁধের সব কয়টি গেট খুলে দেওয়ার কারণে নাটোরের লালপুর পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে । এতে এই অঞ্চলের কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে । চরাঞ্চল ও পদ্মা নদীর তীরবর্তী এলাকার বাড়ী-ঘর প্লাবিত হয়েছে। এসব অঞ্চলের শিশু ও বয়সক মানুষ পানি বাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে ।
জানা যায়, ফারাক্কা বাঁধের সব কয়টি গেট খুলে দেওয়ার কারণে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার লালপুর সদর, ঈশ্বরদী,বিলমাড়ীয়া ও দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের প্রায় ১৮ টি গ্রামের চরাঞ্চল ও পদ্মা নদীর তীরবর্তী এলাকার ফসলি জমি পানিতে তলিয়ে গেছে । এতে প্রায় ১০০০ থেকে ১২০০ হেক্টর জমির আখের ক্ষতির আশংকা দেখা দিয়েছে । এছাড়া চরাঞ্চলের প্রায় ৭০ থেকে ৮০ হেক্টর জমির শীতকালীন সবজির ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে । এতে এই অঞ্চলের কৃষকেরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে । প্রতিনিয়ত নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চরাঞ্চল সহ নদীর তীরবর্তী এলাকার বাড়ী-ঘর প্লাবিত হচ্ছে ,অনেক পরিবার তাদের সদস্যদের ও গবাদি পশু নিয়ে বাড়ী-ঘর ছেড়ে অতœীয়-স্বজনের বাড়ীতে উঠচ্ছে । আবার কেউবা উঁচু অঞ্চলে এসে পরিবারের সদস্যদের ও গবাদি পশু নিয়ে তামবু করে ঠাঁই নিচ্ছে । এছাড়া এসব অঞ্চলের শিশু ও বয়সক মানুষেরা পানি বাহিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছে ।
এবিষয়ে লালপুর উপজেলা ন্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর আবাসিক মেডিকেল অফিসার ( আর,এম,ও) ডাঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেন. যেসব বাড়ী – ঘরে বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে । সে সব পরিবারে শিশু সহ বয়সক মানুষ ডায়রিয়া ও চর্ম রোগ সহ বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হতে পারে । এবিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার রফিকুল ইসলাম বলেন , বন্যায় পদ্মা নদীর চরাঞ্চল সহ নদীর তীরবর্তী এলাকায় প্রায় ১০৪০ হেক্টর আখের জমি পানিতে তলিয়ে গেছে । এছাড়া শীতকালীন সবজি প্রায় ৭০ হেক্টর, মাশ কলাই প্রায় ২০ হেক্টর ও এক আনি প্রায় ১ হেক্টর জমির ফসলের ক্ষতি হয়েছে ।
এবিষয়ে লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার উম্মুল বানীন দ্যূতি বলেন, বন্যায় পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে । এতে উপজেলার লালপুর,ঈশ্বরদী,বিলমাড়ীয়া ইউনিয়নের চরাঞ্চল সহ নদীর তীরবর্তী বেশ কিছু গ্রামে এবং দুড়দুড়িয়া ইউনিয়নের আংশিক বন্যা দেখা দিয়েছে । ইতি মধ্যেই আমরা বন্যাদূর্গতদের মাঝে শুকনো খাবার সহ বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করেছি এবং বন্যাদূর্গতদের জন্য আমরা ১৮ মেঃ চাউল বরাদ্দ দিয়েছি । বন্যার কি অবস্থা আমরা সব সময় খবর রাখছি । বন্যায় ফসলের কি পরিমান ক্ষতি হয়েছে এবং ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের নামের তালিকা করতে কৃষি অফিসকে নির্দেশ দিয়েছি ।
এবিষয়ে উত্তর অঞ্চলের ভারী শিল্প নর্থ বেঙ্গল সুগার মিলস্ লিঃ এর ব্যাবস্থাপনা পরিচালক কৃষিবিদ আবদুল কাদের বলেন, আগামী ১ লা নভেম্বর সুগার মিলটির চিনি উৎপাদন শুরু হবে । এই মিলে বেশির ভাগ আখের চাহিদা মেটানো হয় পদ্মার চরাঞ্চল থেকে । কিন্তু ফারাক্কা বাঁধ খুলে দেওয়ার কারণে পদ্মা নদীর চরাঞ্চল ও নদীর তীরবর্তী এলাকার আখ বন্যার পানিতে তলিয়ে গেছে । এতে করে মিলে চিনি উৎপাদন ব্যাহত হওয়ার আংশকা করছি

আরও দেখুন

লালপুরে পুলিশের অভিযানে আটক- ৯

নিজস্ব প্রতিবেদক, লালপুর:নাটোরের লালপুরে পুলিশের অভিযানে গ্রেফতারী পরোয়ানায় এক ও মাদক সহ চুরি মামলায় অভিযুক্ত …

Leave a Reply

Your email address will not be published.