নীড় পাতা / আইন-আদালত / (ফলো আপ) মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া সেই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে জিডি \ প্রতিবাদ সভা

(ফলো আপ) মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়া সেই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে জিডি \ প্রতিবাদ সভা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগাতিপাড়া
সাংবাদিকের মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে মামলার হুমকি দেয়ার ঘটনায় সেই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে থানায় জিডি করেছেন ভুক্তভুগী সাংবাদিক। শুক্রবার বাগাতিপাড়া থানায় জিডিটি করা হয়। একই দিনে এঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সভা করেছে স্থানীয় প্রেস ক্লাব। সভায় আন্দোলনে নামার সিদ্ধান্ত নেয় সাংবাদিকরা।
জিডি সূত্রে জানা যায়, ১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে বিহারকোল-আড়ানী সড়ক নির্মাণের গালিমপুর পয়েন্টে কার্পেটিং কাজের ভিডিও ধারণ করছিলেন সাংবাদিক মিজানুর । সে সময় প্রকৌশলী সাংবাদিকের মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে আই সিটি মামলার হুমকি দেন। তিনি একজন সরকারি কর্মকর্তা হয়ে অনৈতিক ভাবে সাংবাদিকের পেশাগত দায়িত্ব পালনে বাধা প্রদান করে সাংবাদিককে মামলার হুমকি দেন। এতে ওই কর্মকর্তার দ্বারা সাংবাদিক মিজানের যে কোন বড় ধরণের ক্ষতির সম্ভাবনা বিরাজ করছে এবং পেশাগত দায়িত্বপালনের ক্ষেত্রে তিনি চরম নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন বলে জিডিতে উল্লেখ করেন। শুক্রবার সন্ধায় বাগাতিপাড়া মডেল থানায় সাংবাদিক মিজান এই জিডি করেন।
অপরদিকে শুক্রবার বিকেলে বাগাতিপাড়া উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহাতাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে সেই প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা করেছে স্থানীয় প্রেস ক্লাব। প্রতিবাদ সভায় বিষয়টি তদন্ত করে দ্রুত ওই কর্মকর্তার বিচার দাবি জানান সাংবাদিকরা। এছাড়াও শনিবার মানব বন্ধ এবং রবিবার জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারক লিপি প্রদানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) দুপুরের বিহারকোল-আড়ানী সড়ক নির্মাণের কাজের গালিমপুর পয়েন্টে কার্পেটিংয়ের কাজের ভিডিও ধারণ করছিলেন ৭১ টিভির স্থানীয় সাংবাদিক ও দৈনিক ভোরের কাগজের স্থানীয় প্রতিনিধি মিজানুর রহমান । সে সময় নাটোর সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর কার্যালয়ের সহকারী প্রকৌশলী ইউনূস আলী সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিক মিজানের হাত থেকে ভিডিও ধারণের মোবাইল ফোনটি কেড়ে নেন। অনুমতি না নিয়ে ভিডিও ধারণ করায় সাংবাদিক মিজানকে আইসিটি আইনে মামলার হুমকি দেন ওই প্রকৌশলী । মোবাইল ফোনটি ফেরত চাইলে ফোনটি পুলিশে হস্তান্তর করা হবে বলে জানান তিনি। এরপর ধারণ করা ভিডিও ডিলিট করে মোবাইল ফোনটি ফেরত দেন সাংবাদিক মিজানকে। এরপর সড়কের নির্মাণকাজ সম্পর্কে সাংবাদিক তার কাছে তথ্য চাইলে প্রকৌশলী ইউনূস তা দিতে পারবেনা জানিয়ে তথ্য অধিকার আইনে অফিসিয়াল প্রসেসে নেওয়ার কথা বলেন।

আরও দেখুন

রাণীনগরে গত চার দিনেও ঝরে ক্ষতিগ্রস্থ্য ৭৮ পরিবারের পাশে দ্বাড়য়নি কেউ!

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাণীনগর: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার পারইল ইউনিয়নের তিনটি গ্রামে ঝরে ক্ষতিগ্রস্থ্য ৭৮ পরিবারের পাশে এখনো …

Leave a Reply

Your email address will not be published.