নীড় পাতা / আইন-আদালত / সীমানা নিয়ে পাল্টাপাল্টি মামলা-বড়াইগ্রামে রাস্তার নির্মাণ কাজ বন্ধ

সীমানা নিয়ে পাল্টাপাল্টি মামলা-বড়াইগ্রামে রাস্তার নির্মাণ কাজ বন্ধ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বড়াইগ্রাম
বড়াইগ্রামে রাস্তার প্রকৃত সীমানা নিয়ে বিরোধে পাল্টাপাল্টি মামলা দায়েরের ফলে প্রায় দুই মাস ধরে পাকাকরণ কাজ বন্ধ রয়েছে। ফলে বক্স কেটে বালি ফেলে রাখা রাস্তায় হাঁটাচলাসহ স্বাভাবিক যান চলাচল বন্ধ থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন আশেপাশের গ্রামের পায় ২৫ হাজার মানুষ।
জানা যায়, উপজেলার জোনাইল-রাজাপুর সড়কের কুশমাইল নাসির মোড় থেকে সংগ্রামপুরগামী একটি রাস্তা রয়েছে। গত ১৫ সেপ্টেম্বর উপজেলা প্রকৌশল বিভাগ রাস্তাটি পাকা করার কাজ শুরু করে। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল মজিদ আকন্দ নাসির মোড় এলাকায় রাস্তার শুরুতে কুশমাইল মৌজার ১৪০ হালদাগে প্রায় চার শতক জমি নিজের বলে দাবী করেন। পরে ইউনিয়ন পরিষদের মাপজরিপে রাস্তার শুরুতে চার শতক জায়গা আব্দুল মজিদ পান। এছাড়া মাপজরিপে রাস্তার প্রকৃত জায়গা আনোয়ার হোসেন ও আমজাদ হোসেনের দখলে রয়েছে বলে দেখা যায়। এ সময় আব্দুল মজিদ রাস্তার মধ্যে পড়া তার ব্যাক্তিমালিকানা জমি বাদ রেখে জবর-দখল হওয়া জায়গা মুক্ত করে রাস্তা নির্মাণের দাবী জানান। কিন্তু ঠিকাদার তা না মেনে পূর্বের জায়গায় বক্স কেটে বালি ভরাট করেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে আব্দুল মজিদ আদালতে প্রকৃত জায়গা দিয়ে রাস্তা নির্মাণের আবেদন জানিয়ে উপজেলা প্রকৌশলীকে বিবাদী করে মামলা দায়ের করেন। অপরদিকে, মাপে প্রকৃত রাস্তার জায়গা দখলে থাকা আনোয়ার হোসেন দখল না ছেড়ে জমিটি নিজের দাবী করে আদালতে পৃথক মামলা দায়ের করেন। এভাবে পাল্টাপাল্টি মামলার ফলে রাস্তার নির্মাণ কাজ বর্তমানে বন্ধ রয়েছে। ফলে এ পথে স্বাভাবিক হাঁটাচলাসহ যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সংগ্রামপুরসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের প্রায় ২৫ হাজার মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন।
এ ব্যাপারে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ভ্যানচালক জানান, আমরা ভ্যান চালিয়ে কোন রকমে সংসার চালাই। কিন্তু জমি নিয়ে বিরোধে রাস্তার কাজ বন্ধ থাকায় ভ্যান চলাচলে চরম বিপাকে পড়েছি। তাই দ্রæত সঠিক জায়গা চিহ্নিত করে রাস্তা নির্মাণ কাজ শেষ করার দাবী জানাচ্ছি। কুশমাইল গ্রামের ব্যবসায়ী মনিরুজ্জামান বাবু জানান, আগে ভ্যান-ভুটভুটিতে করে বাড়িতে মালপত্র আনা নেয়া করতাম। কিন্তু রাস্তা কেটে বালু ফেলে রেখে কাজ বন্ধ থাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে মালপত্র আনা নেয়ায় চরম বিপাকে পড়েছি।
উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুর রহিম জনসাধারণের ভোগান্তির বিষয়টি স্বীকার করে জানান, আদালতের নিষেধাজ্ঞার কারণে রাস্তার কাজ বন্ধ রয়েছে। তবে কারো ব্যাক্তিগত জায়গা দিয়ে নয়, রাস্তার জায়গা দিয়েই রাস্তা হবে।

আরও দেখুন

রাণীনগরে মাদকের ৭মামালার আসামী গাঁজাসহ আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, সরাণীনগর: নওগাঁর রাণীনগর থানাপুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদকের ৭মামলার আসামী আবু বক্কর সিদ্দিক বাবু ওরফে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.