রবিবার , জানুয়ারি ১৬ ২০২২
নীড় পাতা / শিরোনাম / সিংড়ায় আইনজীবি ফজলুর রহমানের জমি দানে বিয়াশ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ র্নিমাণ

সিংড়ায় আইনজীবি ফজলুর রহমানের জমি দানে বিয়াশ কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ র্নিমাণ


নিজস্ব প্রতিবেদক, সিংড়া:
নাটোরের সিংড়ায় আইনজীবি ফজলুর রহমানের জমি দানে তাঁর জন্মস্থান বিয়াশ গ্রামে র্নিমান করা হলো কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ। আইনজীবি ফজলুর রহমান নাটোর জজর্কোটের সাবেক জিপি ও সিংড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি।

মঙ্গলবার দুপুরে বিয়াশ দিঘী পাড়া হাসপাতালের পুর্ব পার্শ্বে ফুলবাগ জামে মসজিদ সংলগ্ন প্রায় ৫০ শতাংশ জায়গায় এই কেন্দ্রীয় ঈদগাহ মাঠ র্নিমাণের শুভ উদ্বোধন করা হয়। এ উপলক্ষে স্থানীয় ইউপি সদস্য তারেক হোসেন দুলালের সভাপতিত্বে ও বিয়াশ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক শাহিন আলমের পরিচালনায় নবর্নির্মিত ঈদগাহ মাঠের উন্নয়ন ও বাস্তবায়ন সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ২ নং ডাহিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম এম আবুল কালাম। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সিংড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ দপ্তর সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা,২ নং ডাহিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল মজিদ মামুন,ইউনিয়ন আওয়ামীগের যুগ্ন সাধারন সম্পাদক আলহাজ হাবিব দুলাল সহ অন্যরা। এসময় উপস্থিত ছিলেন ২নং ডাহিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক জুলহাজ কায়েম, ৪ নং ওর্য়াড আওয়ামীগের সভাপতি সাইফ মাহমুদ, ৪ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি সিরাজুল ইসলঅম শিশির,অবসর সেনা সদস্য দুলাল আজিজ সহ বিয়াশ গ্রামের গণ্যমাণ্য ব্যক্তি।

অনুষ্ঠানের সভাপতি তারেক হোসেন দুলাল তাঁর স্বাগতিক বক্তব্যে বলেন, ডাহিয়া ইউনিয়নের সদর দপ্তর গ্রাম হলো বিয়াশ। এখানেই ইউনিয়ন পরিষদ ভবন কমপ্লেক্স স্থাাপিত। বৃহত্তম এই গ্রামে একটি উচ্চ বিদ্যালয়, প্রাথমিক বিদ্যালয়, কওমীয়া মাদ্রাসা, কেন্দ্রীয় কবরস্থান সহ প্রায় প্রতিটি পাড়াতেই মসজিদ থাকলেও গ্রামে কেন্দ্রীয় কোন ঈদগাহ মাঠ নেই। ঈদগাহ মাঠ না থাকায় গ্রামের মানুষ স্থানীয় মসজিদ কিম্বা পাশের গ্রামের ঈদগাহ মাঠে গিয়ে ঈদের নামায আদায় করেন। শুধু মাত্র জায়গার অভাবে আমাদের ঈদগাহ মাঠ নির্মান থেকে এতদিন আমরা পিছিয়ে ছিলাম । আমাদের বিয়াশ গ্রামের কৃতি সন্তান শ্রদ্ধাভাজন আইনজীবি ঈদগাহ মাঠের জন্য জায়গা দান করে গ্রামবাসীদের ঈদগাহ মাঠ নির্মান করার সেই সুযোগ করে দেওয়ায় আমরা তাঁর কাছে চির কৃতঙ্ঘ।

জমি দাতা এডভোকেট ফজলার রহমান বলেন, গ্রামে ঈদগাহ মাঠের সেই শুন্যতা পুরনের লক্ষেই আমি এই জমি দান করেছি। এই জমি মুলত তৎকালীন হিন্দু জমিদারদের বাগান বাড়ি ছিল। সেই ইতিহাস ধরে রাখার জন্যই আমি সকলের সাথে পরার্মশ করে এই ঈদগাহ মাঠের নাম করন করেছি বিয়াশ কেন্দ্রীয় ফুলবাগ ঈদগাহ মাঠ। সকালের সহযোগিতায় এই মাঠের সার্বিক উন্নয়ন প্রত্যাশা করছি। সেই সাথে আমি আশা করছি যতদিন বেঁচে থাকবো ততদিন এই মাঠের উন্ননের জন্য সহযোগিতা করে যাবো।

আরও দেখুন

চাঁপাইনবাবগঞ্জে হরিজনদের সঙ্গে মতবিনিময় করলেন পিকেএসফের এমডি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চাঁপাইনবাবগঞ্জ:চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার ঝিলিম ইউনিয়নের আমনুরায় হরিজন পল্লীতে সেখানকার বাসিন্দার সাথে মতবিনিময় করেছেন …