সোমবার , জানুয়ারি ২৪ ২০২২
নীড় পাতা / জেলা জুড়ে / বিনা চিকিৎসায় অবহেলায় ৭ সন্তানের উলঙ্গ পিতা পড়ে আছে ভাঙ্গা ঘরে

বিনা চিকিৎসায় অবহেলায় ৭ সন্তানের উলঙ্গ পিতা পড়ে আছে ভাঙ্গা ঘরে


নিজস্ব প্রতিবেদক, লালপুরঃ
৭টি সন্তানের জনক হয়েও বিনা চিকিৎসায়, অবহেলায়, উলঙ্গ অবস্থায় দিনের পর দিন পড়ে আছেন হতভাগ্য পিতা দেলবার মল্লিক। অসহায় দেলবার না পারেন কাউকে বলতে, না পারেন এই অসহ্য অবহেলা সইতে। নাটোরের লালপুর উপজেলার ধুপইল মন্ডল পাড়া এলাকার বাসিন্দা এই দেলবার মল্লিক।

স্থানীয়রা জানায়, বেশ কিছুদিন থেকেই অসুস্থ দেলবার মল্লিক। তেমনভাবে চিকিৎসা করেনি কেউ। ভাঙ্গা ঘরের একটি চৌকির উপরে প্রায় উলঙ্গ ফেলে রেখেছে তার সন্তানেরা। বড় ছেলে আলমের জমি জিরাত আছে আর দয়ারামপুর বাজারে কুলিগিরী করেন। ছেলে পুলে নিয়ে তার সংসার, কিন্তু বৃদ্ধ পিতাকে দেখে না। একইভাবে আসাদুল, সাইফুল, হামিদুল, আশিক, সোহরাব কেউই বাপকে দেখে না। একমাত্র মেয়ের বিয়ে হয়ে আজ পরের ঘরে।

দেলবারের প্রতিবেশীরা জানান, বহুকষ্টে মানুষ করেছিলেন ৭ টি সন্তানকে। বিপদের দিনে তারা অসহায়ের সহায় হয়ে থাকবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু সে আশা পূরণ হয়নি দেলবারের। যৌবনে জমিজমা ভালোই করেছিলেন। স্ত্রী মারা যাওয়ার পর সন্তানরা সে সমস্ত জমি ভাগ করে নিয়েছে। সেই জমি সন্তানরা চাষবাস করে খাচ্ছে, কেউ কেউ অন্য পেশার সাথেও জড়িত। সবাই বিয়ে শাদী করে সুখে শান্তিতে সংসার করছে। তবু বৃদ্ধ পিতাকে দেখাশোনা করার মানসিকতা নাই একটি সন্তানেরও।

অসহায় এই বৃদ্ধটির সুচিকিৎসা ও দেখভালের ব্যবস্থার জন্য প্রশাসনের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন স্থানীয়রা। তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন কেন ৬টি ছেলে তাদের বৃদ্ধ পিতাকে দেখবেন না, কেন অসহায় অবস্থায় ফেলে রাখবেন। জীবনের এই ক্রান্তিকালে এসে যেকোন পিতাই সন্তানদের সেবায় বেঁচে থাকার দাবীদার। অসহায় পিতার পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের দৃষ্টান্তমূলক ভূমিকা প্রত্যাশী দেলবরের শুভাকাঙ্খীরা।

আরও দেখুন

বাগাতিপাড়া সাব-রেজিস্ট্রি অফিস দলিল লেখক সমিতির দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ

নিজস্ব প্রতিবেদক, বাগাতিপাড়া: নাটোরের বাগাতিপাড়া সাব-রেজিস্ট্রি অফিসে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদকে কেন্দ্র করে দলিল …