নীড় পাতা / টপ স্টোরিজ / প্রাণ ভয়ে গুরুতর আহতাবস্থায় ১ ঘন্টা ধরে টয়লেটে আদিবাসী যুবক

প্রাণ ভয়ে গুরুতর আহতাবস্থায় ১ ঘন্টা ধরে টয়লেটে আদিবাসী যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
আদিবাসী যুবক রবিনাথ হাঁসদা’র এখন ঠিকানা নাটোর সদর হাসপাতালের বিছানা। ডাব বিক্রির কথা থাকলেও তিনি এখন শয্যাশায়ী। ছিনতাইকারীর অস্ত্রের আঘাতে গুরতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে তিনি এখন হাসপাতালের বেডে যন্ত্রনায় কাতরাচ্ছেন। জীবন বাচাতে তাকে টয়লেটের মধ্যে ১ঘন্টা পালিয়ে থাকতে হয়েছে।

গত ২৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় নাটোর সদর উপজেলার তেতুলতলা এলাকায় রবিনাথকে অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে নগদ টাকা ও মোবাইল ছিনতাই করে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা। এরিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এই ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়েরের প্রক্রিয়া চলছিল। রবিনাথ হাঁসদা জেলার বাগাতিপাড়া উপজেলার রাঙ্গামাটি গ্রামের নরেন হাঁসদার ছেলে।

ভুক্তভোগী রবিনাথ হাঁসদা ও তার ভাই বালক হাঁসদা জানান, ২৪ ডিসেম্বর সন্ধ্যায় রবিনাথ জেলার নলডাঙ্গা উপজেলার মমিনপুর গ্রামের এক আত্মীয়ের বাসা থেকে নিজের ভ্যানযোগে বাড়ী ফিরছিলেন। এসময় নাটোর সদর উপজেলার তেতুলতলা এলাকায় পৌছালে ৩/৪জন অজ্ঞাত লোক অস্ত্রসহ তার গতিরোধ করে। পরে তারা রবিনাথের কাছে থাকা ডাব বিক্রির সমুদয় টাকা দাবি করে। কিন্তু টাকা দিতে অপারগতা জানালে ছিনতাইকারীরা অস্ত্র দিয়ে রবিনাথের মাথা ও পিঠে এলোপাতাড়ি আঘাত করে ১২ হাজার টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা তার আর্তচিৎকার শুনতে পেয়ে তাকে উদ্ধার করলে সেখানে তাকে তার স্থানীয় এক আত্মীয়ের বাসায় নেওয়া হয়। ওই আত্মীয়ের বাসায় ঠাঁই নেওয়ায় ওই পরিবাকে প্রাণ নাশের হুমকি দেয় ছিনতাইয়ের সাথে জড়িতরা। এসময় রবিনাথ মাথায় রক্তাক্ত জখমপ্রাপ্ত অবস্থায় প্রায় ১ ঘন্টা পায়খানার মধ্যে পালিয়ে থাকেন। পরে ওই দিন রাতেই তাকে নাটোর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

রবিনাথের মাথায় ৫টি গভীর সেলাই দেওয়া হয়েছে। এঘটনায় চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন ভুক্তভোগী ও তার আত্মীয়রা। এ বিষয়ে ভয়ে কথা বলতে চাইছেন না ভুক্তভোগীর ওই আত্মীয়রা।

নাটোর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কাজী জালাল উদ্দিন জানান, এবিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও দেখুন

দুপচাঁচিয়ায় ইয়াবা ও গাজাঁ বিক্রির সময় ২ মাদক বিক্রেতা আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক, দুপচাঁচিয়া:বগুড়ার দুপচাঁচিয়ায় ইয়াবা ও গাঁজা বিক্রির সময় ২ মাদক বিক্রেতা আটক। ২৪ মে …