মঙ্গলবার , আগস্ট ৯ ২০২২
নীড় পাতা / জেলা জুড়ে / নাটোর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে পাহাড় সমান অভিযোগ অভিভাবকদের

নাটোর সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে পাহাড় সমান অভিযোগ অভিভাবকদের

নিজস্ব প্রতিবেদক
নাটোর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে নিষ্কৃয়তা ও বিদ্যালয় পরিচালনায় প্রধান শিক্ষকের অনিয়ম নিয়ে অভিভাবকদের নানান অভিযোগ শুনলেন বিদ্যালয়ের গভর্নিং বডির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শাহরিয়াজ।

শনিবার দুপুরে সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে ‘শিক্ষার মানোন্নয়নে করণীয়’ সম্পর্কে অভিভাবক ও সুধীজনদের এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সভায় অভিভাবকরা অভিযুক্ত দুই শিক্ষকের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার দাবী জানান।

অভিভাবকরা অভিযোগ করেন, অতীতে বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা কোচিং বাণিজ্যে লিপ্ত হয়ে ছাত্রীদের প্রাপ্য শিক্ষা থেকে বঞ্চিত করেছেন। বর্তমানে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল মতিনের প্রশ্রয়ে ও উদাসীনতায় যৌন নীপিড়নের অভিযোগে অভিযুক্ত শিক্ষকদের বাঁচানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে। এসব বিষয়ে একাধিকবার প্রতিকার চেয়ে মৌখিক অভিযোগ করা হলে আব্দুল মতিন উল্টো অভিভাবকদের ভর্ৎসনা করেছেন। পাশাপাশি নাটোর-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আব্দুল কুদ্দুসের ভয় দেখিয়ে তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করেন তিনি।

অভিভাবকরা আরো অভিযোগ করেন, কোন অনিয়মের ব্যাপারে প্রধান শিক্ষককে বলতে গেলে তিনি ছাত্রীদের চিহ্নিত করে রাখেন। পরে শ্রেণীর অনান্য শিক্ষক দ্বারা তাকে মানসিকভাবে নাজেহাল করা হয়। শিক্ষকরা নিয়মিত ক্লাস নেন না। এছাড়া, কম্পিউটার ল্যাব থাকার পরও অতিরিক্ত রেজিস্ট্রেশন ফি, বিবিধ খরচের নামে অতিরিক্ত ১০০টাকা আদায়সহ নানা অনিয়মের প্রসঙ্গ তুলে অভিভাবকরা এসব বন্ধের দাবী জানান।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আশরাফুল ইসলামের সঞ্চালনায় উক্ত মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা, পৌর মেয়র উমা চৌধুরী জলি, শিক্ষা কর্মকর্তা রমজান আলী আকন্দ, জর্জকোর্টের পিপি সিরাজুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মোর্ত্তোজা আলী বাবলু, বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ খালিদ বিন জালাল, আইনজীবি খগেন্দ্রনাথ রায় প্রমুখ।

বিদ্যালয়ের গভর্নিং বডির সভাপতি ও জেলা প্রশাসক মোঃ শাহরিয়াজ সাংবাদিকদের বলেন, চলমান অবস্থার সংকট কাটিয়ে উঠে আবারো সুষ্ঠ পরিবেশে পাঠদানের ব্যবস্থা করা হবে। শিক্ষকরা যাতে নিয়মিত ক্লাসে আসেন সে বিষয়ে নজরদারী বাড়ানো হবে। যৌন নিপীড়নের অভিযুক্ত শিক্ষকদের কোনভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।

উল্লেখ্য, গত ২৬ আগস্ট তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্রীকে যৌন নীপিড়নের অভিযোগে গ্রেফতার হন স্কুলের শারীরিক শিক্ষা বিষয়ক শিক্ষক আব্দুল হাকিম। এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে প্রাক্তন এক ছাত্রীর গণিতের শিক্ষক সাইফুল ইসলামে কথোপকথন। এ নিয়ে চরম অনাস্থা ও বিব্রতকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় শিক্ষক ও অভিভাবকদের মাঝে।

আরও দেখুন

গুরুদাসপুরে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছার জন্মবার্ষিকী পালন

নিজস্ব প্রতিবেদক, গুরুদাসপুর: বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব-এর ৯২ তম জন্মবার্ষিকী উদযাপনে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলা …