নীড় পাতা / আইন-আদালত / নাটোরে ভূয়া কাজীর ১৫ দিনের জেল

নাটোরে ভূয়া কাজীর ১৫ দিনের জেল

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
নাটোরে ভূয়া কাজী আবু বক্কর সিদ্দিক(৬০) কে ১৫ দিনের কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সোমবার রাত ১০টার দিকে তাকে শহরের হরিশপুর বালুচর এলাকার আব্দুর রহমান ড্রাইভারের বাড়ি থেকে আটক করার পর ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে হাজির করে পুলিশ। এসময় ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম ঘটনার বিবরণ শুনে তাকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন। আটক আবু বক্কর সিদ্দিক শহরের চকরামপুর এলাকার মৃত ইসহাক আলী মুন্সির ছেলে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেরা নির্বাহী অফিসার জাহাঙ্গীর আলম জানান, সোমবার রাতে আবু বক্কর সিদ্দিক শহরের হরিশপুর বালুচর মহল্লার মৃত ভোলা মিয়ার ছেলে আব্দুর রহমানের বাড়িতে যায়। সেখানে গিয়ে রহমানকে বলে তার স্ত্রী চন্দনাকে তালাক দেয়ার কথা। এসময় আব্দুর রহমান আশ্চর্য হয়ে যায়। আব্দুর রহমান এসময় বলেন, চন্দনা তার স্ত্রী নয়। তিনি চন্দনার বিয়ের সাক্ষী ছিলেন মাত্র। তর্কের এক পর্যায়ে রহমানের সন্দেহ হয় সে আসল কাজী কিনা। তখন তিনি বিবাহ রেজিস্টার সমিতির সভাপতি কাজী রিয়াজুল হক মোমিনকে খবর দেন।

সভাপতি কাজী রিয়াজুল হক মোমিন সেখানে উপস্থিত হয়ে বলেন, আবু বক্কর সিদ্দিক কোন সরকারি নিয়োগ প্রাপ্ত বৈধ কাজী নন। এরপর বিবাহ রেজিস্টার সমিতির নেতারা সিদ্ধান্ত নিয়ে সিদ্দিককে পুলিশে দেন। পুলিশ তাকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালতের সামনে হাজির করলে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাকে ১৫ দিনের কারাদণ্ড প্রদান করেন।

বিবাহ রেজিস্টার সমিতির সভাপতি কাজী রিয়াজুল হক মোমিন জানান, জেলায় এমন অনেক কাজী আছে, যারা বাল্য বিয়ে থেকে শুরু করে অনিবন্ধিত বিয়ে দেন এবং মানুষকে ব্ল্যাকমেইল করে টাকা হাতিয়ে নেন। প্রশাসনের কাছে এই সকল ভূয়া কাজীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী জানান মোমিন।

আরও দেখুন

নাটোরে জাল টাকাসহ স্বামী-স্ত্রী আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক: নাটোরে জাল টাকা সহ মোঃ রিপন (৩৩) এবং তার স্ত্রী লাবনী আক্তার রিমু …