নীড় পাতা / জেলা জুড়ে / নাটোর সদর / নাটোরে বোরখা পরা ছিনতাইকারী গ্রেফতার 

নাটোরে বোরখা পরা ছিনতাইকারী গ্রেফতার 

নিজস্ব প্রতিবেদক:
বোরখা পরে নারী সেজে নির্জন সড়কে পথচারীদের থেকে সর্বস্ব ছিনতাই চক্রের সদস্য মামুন আলীকে(৪২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 
 বুধবার(১১ মে) দিবাগত রাতে ছিনতাইয়ের প্রস্ততিকালে বনবেলঘড়িয়া পশ্চিম বাইপাস এলাকা থেকে সন্দেহভাজন ছিনতাইকারী মামুনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এসময় তার বোরখার ভেতর থেকে ছিনতাইয়ের কাজে ব্যবহৃত একটি ধারালো চাকু ও রডের পাইপ উদ্ধার করা হয়। তবে ছিনতাইয়ের সাহায্যকারী রনি হোসেন(৩৮) নামের এক যুবক পুলিশের উপস্থিতিতে টের পেয়ে দৌড়ে পালিয়ে যায়। 

গ্রেফতার মামুন আলী(৪২) বনবেলঘরিয়া বাইপাস এলাকার মৃত বাহার আলীর ছেলে। মামুনের বিরুদ্ধে নাটোর সদর থানায় ছিনতাই ও চুরির চারটি মামলা রয়েছে। 

এ ঘটনায় বৃহষ্পতিবার নাটোর সদর থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক মো. সাখাওয়াত হোসেন বাদী হয়ে অস্ত্র আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

সহকারি উপ-পরিদর্শক মো. সাখাওয়াত হোসেন জানান, বৃহষ্পতিবার রাত ২টার সময় তাঁর নেতৃত্বে পুলিশের রাত্রীকালীন একটি টহল টিম নাটোর-রাজশাহী মহাসড়কের মহিলা কলেজ গেইট এলাকায় দায়িত্ব পালনের সময় কলেজের সামনে নির্জন রাস্তায় বোরখা পরিহিত এক নারীকে একজন মোটরসাইকেল আরোহীর সাথে দাড়িয়ে থাকতে দেখে কাছে যান। তারা কোথায় যাবেন জানতে চাইলে পুলিশ দেখে মোটরসাইকেল চালক দৌড়ে পালিয়ে যায়। তখনবোরখায় মুখ ঢাকা ওই নারীকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তার কন্ঠস্বর শুনে পুলিশের সন্দেহ হয়। তখন বোরখার মুখ খুলতে বললে তিনি তর্ক শুরু করেন। হঠাৎ পায়ের জুতা দেখে পুলিশ বুঝতে পারে তিনি নারী নন পুরুষ। তখন পুলিশ বোরখার মুখ খুলে দেখেন বোরখা পরে আছেন একজন পুরুষ। এসময় তার শরীর তল্লাশি করে একটি ধারালো চাকু ও রডের পাইপ উদ্ধার করা হয়। তাকে আটক করে থানায় এনে জানা যায় তার নাম মামুন ও তার সাথে থাকা ছিনতাইয়ে সহায়তাকারীর নাম রনি।   

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, মামুনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। নারীরুপী মামুনের ডাকে যারাই সাড়া দিতেন তারাই বিপদে পড়েছেন। অভিনব এ ছিনতাইকাজে জড়িত পুরো চক্রকে ধরতে অভিযান পরিচালনা করছে পুলিশ। 

আরও দেখুন

রাণীনগরে গত চার দিনেও ঝরে ক্ষতিগ্রস্থ্য ৭৮ পরিবারের পাশে দ্বাড়য়নি কেউ!

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাণীনগর: নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার পারইল ইউনিয়নের তিনটি গ্রামে ঝরে ক্ষতিগ্রস্থ্য ৭৮ পরিবারের পাশে এখনো …